মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

প্রখ্যাত ব্যক্তিত্ব

 

দেলদুয়ারের ক্ষণজন্মা পুরুষ যারা দেশ মাতৃকার কল্যাণে কাজ করে চিরস্মরণীয় হয়ে আছেন তাঁদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছেন-

 

১.    স্যার আব্দুল করিম গজনবী (১৮৭২-১৯৩৯)- বিশিষ্ট রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ও অবিভক্ত বাংলার প্রধানমন্ত্রী।

২.   স্যার আব্দুল হালিম গজনবী (১৮৭৬-১৯৫৩)-বৃটিশ সরকার কর্তৃক নাইট উপাধিতে ভূষিত রাজনীতিক ও সমাজ সেবক।

৩.    ডাঃ ফজলুর রহমান খান (১৮৮০-১৯৪৮) বাংলার প্রথম মুসলমান এল.এম.এস. ডাক্তার(সিভিল সার্জন)।

৪.    আলহাজ কাজী আব্দস সালাম (১৮৭৬-১৯৬২) বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও শিক্ষানুরাগী।

৫.    হযরত শাহ সূফি মওলানা আব্দুল রকিব পীর সাহেব (১৮৯০-১৯৬৯) পায়ে হেটে পবিত্র মক্কা ও মদিনা শরিফে গিয়েছিলেন।

৬.   ডাঃ আব্দুর রহমান (১৮৯৭-১৯৬২) সাবেক অধ্যাপক (চেয়ারম্যান, এনাটমি বিভাগ), ঢাকা মেডিকেল কলেজ।

৭.   জর্জ বেলায়েত হোসেন (১৮৯৯-১৯৫৪) বৃটিশ-ভারতের নামকরা জজদের একজন। সাবেক চেয়ারম্যান, এগ্রিকালচারাল ট্রাইবুনাল।

৮.    মঈন উদ্দিন বিএবিটি (১৯০৮-১৯৭৭) সাহিত্য রত্ন কাব্য বিশারদ।

৯.    কাজী সামসুল হক (১৯০৮-২০০০) বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিত্ব।

১০.   অনুপম ঘটক (১৯১১-১৯৫৬) বিশিষ্ট সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক।

১১.   ডঃ মির্জা নুরুল হুদা (১৯১৯- ) প্রাক্তন অর্থ মন্ত্রী ও উপ-রাষ্টপতি, আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন অর্থনীতিবিদ।

১২.    ডাঃ আজিজুর রহমান খান (১৯২২-১৯৯২) বিশিষ্ট চিকিৎসক, সমাজ সেবক ও শিক্ষানুরাগী।

১৩.  জননেতা সামছুল হক, বৃটিশ বিরোধী ও মহান ভাষা আন্দোলনের অন্যতম রূপকার, আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সেক্রেটারী।

১৪.    ডঃ আলীম আল রাজী (১৯২৫-১৯৮৫) আইনবিদ ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব।

১৫.    প্রফেসর ডঃ মোঃ কায়সার হুসেইন, প্রো-ভিসি, এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ, ঢাকা।

১৬.   ফতিফা আকন্দ, অবসর প্রাপ্ত প্রফেসর, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

১৭.   মোহাম্মদ দেলওয়ার হোসেন, সাবেক চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ সুপার এন্ড ফুড কর্পোরেশন। বেলায়েৎ হোসেন বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা।

১৮.   ব্যারিস্টার শওকত আলী খান, পরিচালক, কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট।

১৯.   মেজর অবঃ এস. আর. খান, বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিত্ব।

২০.   ডঃ মোঃ আনোয়ার হোসেন, বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানী।

২১.   অধ্যক্ষ হুমায়ুন খালিদ সনামধন্য শিক্ষাবিদ, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ও ইসলামী চিন্তাবিদ।

২২.   অনীল কুমার মুখোপাধ্যায়, নির্বাহী পরিচালক, শক্তি ঔষধালয়, ঢাকা।

২৩.   প্রফেসর মোঃ শামসুদ্দিন, অধ্যাপক, দর্শন বিভাগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়।

২৪.   প্রফেসর ডাঃ মোঃ হামিদুর রহমান, সাবেক অধ্যক্ষ, রংপুর মেডিকেল কলেজ, অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান, শিশু বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা।

২৫.   ডঃ এম. এ. বারী মিয়া, অধ্যাপক ও পরিচালক, ইনস্টিটিউট অব বায়োলজিক্যাল সায়েন্স, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়।

২৬.  প্রফেসর ডঃ মোঃ শাহজাহান, গবেষক ও অধ্যাপক কীটতত্ত্ব বিভাগ, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিংহ।

২৭.    ডঃ আব্দুল আজিজ, অধ্যাপক, উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

২৮.  ডঃ মোঃ আব্দুল করিম, গবেষক ও অধ্যাপক (উদ্ভিদ বিভাগ), বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিংহ।

২৯.   প্রফেসর ডাঃ আনোয়ারা বেগম (স্ত্রীরোগ ও ধাত্রীবিদ্যা বিশেষজ্ঞ), প্রাক্তন অধ্যাপিকা ও বিভাগীয় প্রধান, ঢাকা মেডিকেল কলেজ।

৩০.  ডঃ রেজোয়ান হোসেন সিদ্দিকী, লেখক, গবেষক, সাংবাদিক, সাবেক মহাপরিচালক, বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউট।

৩১.  ডাঃ মোঃ ইয়াকুব আলী, সহযোগী অধ্যাপক, চর্ম ও যৌনরোগ বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা।